তরুণ ইশরাক ও দুই নেত্রীর ‘সরাসরি’ কথা

শেখ হাসিনাকে মেরে ফেলতে ২১ই আগষ্ট তার উপর গ্রে°নেড হা°মলা করলেন, তার পর সংবাদ মাধ্যমে ততকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম জিয়া বলেন শেখ হাসিনাই নাকি ভেনিটি ব্যাগে করে গ্রেনে°ড নিয়ে গিয়েছিলেন। তো এখন কি শেখ হাসিনা সরাসরি খালেদা জিয়ার সাথে ঐ দিনের কথা গুলো বলবেন? তিনি বলবেন, “২১ই অগাস্ট ভেনিটি ব্যাগে আমি গ্রে°নেড নিয়ে যায়নি, আপনার ছেলে আমাকে গ্রে°নেড হামলা করে হ°ত্যা করতে চেয়েছিলেন আর তা আপনিও যানতেন। কিন্তু আমি আজ দীর্ঘদিন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি আমার ছেলে বা আমার ছত্রছায়ায় আমর দলের কোন লোক আপনার উপর একটি হাম°লাও করেনি”।

বেগম জিয়ার ছোট ছেলে আরফাত রহমান মা°রা গেলে শেখ হাসিনা সমবেদনা জানাতে বেগম জিয়ার বাড়িতে গিয়েছিলেন। তাকে বাড়িতে ডুকতে দেওয়া হয়নি। বাড়ির প্রধান ফটকে শেখ হাসিনাকে আট°কে দিয়ে উল্লাস করা হয়েছিল সেদিন। তো শেখ হাসিনা কি সরাসরি খালেদা জিয়াকে সেদিনের কথা গুলো বলবেন? তিনি কি বলবেন, একজন ‘মা’ হিসেবে সদ্য সন্তান হা°রানো আরেকটা মা-কে সান্ত্বনা দিতে গিয়েছিলাম। সেদিন আমাকে চর°মভাবে অপ°মান করা হয়েছিল। দূ°র্নীতির দায়ে আদালতের রায়ে বেগম জিয়া সা°জাভোগ করছেন। এখানে জনাব ইশরাক প্রতি°হিংসা কোথায় দেখলেন?

রাজনৈতিক সমজতা কি ভাবে হয়? ইশরাক সাহেব বললেন ‘সরাসরি’ কথা বলার জন্য। সরাসরি কথা বলার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়াকে ফোন করেছিলেন। জনাব ইশরাক বিষয়টি হয়তো জানেননা, পুরো জাতি জানে। ঐ ফোনালাপে শেখ হাসিনার সাথে অনেক নিচু মানের কথাবার্তা বলা হয়েছিল। সারাদেশের মানুষ ঐ ফোনালাপ শুনেছে। এর পরও ‘শেখ হাসিনা’ সরাসরি কথাটা কি নিয়ে বলবে, মাথামোটা হিসেবে আমার বোধগম্য নয়। ইশরাক সাহেব আপনি কি জাতির কাছে বলবেন ‘সরাসরি’ কথাটা কি নিয়ে বলবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আপনার বাবা জনাব সাদেক হোসেন খোকা একজন মুক্তিযুদ্ধা, সাবেক মেয়র, মন্ত্রী ও সাংসদ। একজন সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি। তার জানাযায় প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বললেন সরাসরি বেগম জিয়ার সাথে কথা বলার জন্য। এই কথা গুলো আর কিছুদিন পরে বললেও পারতেন। হয়তো আপনার বাবার অবর্তমানে তার রাজনৈতিক স্থানটি আপনি দখলে নেওয়ার চেষ্টা করবেন। সে জয়গা দখলে নেওয়ার জন্য আপনাদের মতো কিছু তরুণদের আইডল তারেক রহমানের দৃষ্টি আকর্ষণ করা জরুরি। তার দৃষ্টি আকর্ষণ জন্য আপনার আর দেরি সহ্য হয়নি। তাই আপনার বাবার প্রতি দলমত নির্বিশেষে শ্রদ্ধা জানাতে আসা মানুষের জমায়েতকে বেছে নিয়েছেন ফায়দা হাসিলের বক্তব্যটি ছেড়ে দেওয়ার জন্য।

আরও পড়ুন

Comments are closed.